পহেলা বৈশাখের কবিতা সমগ্র - Only4SMS.Com

Tuesday, May 1, 2018

পহেলা বৈশাখের কবিতা সমগ্র

হ্যালো বন্ধুরা, সবাই কেমন আছো? আজকে তোমাদের মাঝে নিয়ে আসলাম কিছু বাংলা পহেলা বৈশাখের কবিতা সমগ্র। পহেলা বৈশাখের কবিতা গুলু পড়ুন এবং শেয়ার করুন। ভালো থেকো বন্ধুরা।



বৈশাখ কবিতা, নববর্ষের কবিতা,পহেলা বৈশাখের কবিতা সমগ্র:

স্বরচিত কবিতা

সাজিয়ে রাখি বরণডালা তোমার অপেক্ষা করি।
তাড়াতাড়ি এস এবার কর না আর দেরী।।
উঁকি মেরে দেখছ কেন আমরা কেমন আছি।
এইতো সবে হয়েছি আজ তোমার কাছাকাছি।।
হিমের ছোঁয়া লাগে যদি ভয় করছ তাই।
মিলেমিশে থাকব মোরা হিমকে ভয় নাই।।
আনন্দে আজ মাতোয়ারা ধরাধামের মাঝে।
আসবে কেমন করে তুমি দেখবো নতুন সাজে।।
ভাঙবে কখন সুপ্তি তোমার তাকিয়ে আছি সবে।
ভাবছ তুমি আসবে তখন? যখন বারোটা হবে।।
ডাকবে যখন ভোরবেলাতে কিচিরমিচির পাখি।
কেমন করে বন্ধ রাখবে তোমার দুটি আঁখি।।
দূর করে দাও গ্লানি যত ঘোমটা দাও খুলে।
প্রভাতকালে দেখবে তোমায় নানা রঙের ফুলে।।

শুভ নববর্ষ

সবুজ আহমেদ’র কবিতা

শুভ নববর্ষ ১৪২৫

সকাল পেরিয়ে বিকাল, সন্ধ্যা, রাত্রি
রাত্রি শেষে ঝলমলে সোনালী আলোয় একটি নতুন দিন
এভাবে দিনে দিনে সপ্তাহ, মাস, বছর
বছর শেষে ঝলমলে সোনালী আলোয় একটি নতুন দিন
নতুন একটি সকাল
নতুন একটি বিকাল
নতুন একটি সন্ধ্যা
নতুন একটি রাত্রি
নতুন একটি সপ্তাহ
নতুন একটি মাস
নতুন একটি বছর
নতুন একটি ক্যালেন্ডার
কক্সবাজার সমুদ্রে সৈকতে দাঁডিয়ে দ্যাখা নতুন একটি সুর্যোদয়
রঙিন গোধুলী বেলা শেষে সহস্র লোকের ভিড়ে নতুন সুর্যোস্ত
কানে কানে বলে যায়
আজ নববর্ষ
শুভ নববর্ষ
এলো নববর্ষ এলো

নববর্ষের নব চেতনা

হৃদয়ের ঘুমন্ত ভালোবাসা জাগরিত করে;
এসো হে নবীন এসো হে প্রবীন একই মঞ্চ ‘পরে।
সব জড়তা আর দৈন্যতা ঝেড়ে ফেলে;
প্রকৃত ভালোবাসার প্রশান্ত আগুনে জ্বলে।
হিংসার অভিশপ্ত দাবানল নগ্ন পায়ে দলে;
ফুলের ভালোবাসার ডালি দাও তুলে।
মার্তৃভূমির বেদনাতুর লাল-সবুজের বুকে,
দেশকে রাখব মোরা ভালোবাসায়, চোখে চোখে
ধর্ম-বর্ণ দল-মত নির্বিশেষে;
একই সাথে থাকি সবে পরম ভালোবেসে
এসো ভুলে যাই স্বার্থপরতার যত ছলনা;
এই হোক নববর্ষের নবচেতনার উন্মাদনা।


নববর্ষে


নিশি অবসানপ্রায় , ওই পুরাতন

বর্ষ হয় গত!

আমি আজি ধূলিতলে এ জীর্ণ জীবন

করিলাম নত ।

বন্ধু হও , শত্রু হও , যেখানে যে কেহ রও ,

ক্ষমা করো আজিকার মতো

পুরাতন বরষের সাথে

পুরাতন অপরাধ যত ।

আজি বাঁধিতেছি বসি সংকল্প নূতন

অন্তরে আমার ,

সংসারে ফিরিয়া গিয়া হয়তো কখন

ভুলিব আবার ।

তখন কঠিন ঘাতে এনো অশ্রু আঁখিপাতে

অধমের করিয়ো বিচার ।

আজি নব-বরষ-প্রভাতে

ভিক্ষা চাহি মার্জনা সবার ।

আজ চলে গেলে কাল কী হবে না-হবে

নাহি জানে কেহ ,

আজিকার প্রীতিসুখ রবে কি না-রবে

আজিকার স্নেহ ।

যতটুকু আলো আছে কাল নিবে যায় পাছে ,

অন্ধকারে ঢেকে যায় গেহ —

আজ এসো নববর্ষদিনে

যতটুকু আছে তাই দেহো ।

নববর্ষের নতুন প্রভাতে

নববর্ষের নতুন প্রভাতে,
পাখিরা গাহিছে গান।
আপনবেগে বহিছে নদী,
শোন নদীর কলতান।

প্রভাতে সোনার বরণ রবি,
উঠিয়াছে পূর্ব গগনে,
মাধবী,মালতী,টগর,করবী,
ফুটিয়াছে বনে বনে।

ফুলে ফুলে উড়ে প্রজাপতি,
সমীরণ সৌরভ ছড়ায়।
মাতিয়া উঠে সবাকার প্রাণ,
খুশিতে হৃদয় ভরে যায়।

নববর্ষের এই নবীন প্রভাতে,
প্রাণে জাগুক নব নব আশা।
শুভ নববর্ষে আজিকে সবাই,
নিও মোর প্রীতি ও ভালবাসা।


নববর্ষের চিঠি


এবারও তেমনি শেষ চৈত্রের খর নিঃশ্বাসে
নতুন বছর আসবে হয়তো; কিন্তু তুমি কি জানো
এদেশে কখন আসবে নতুন দিন? কখন উদ্দীপনা
অবসাদ আর ব্যর্থতাকেই দেবে নিদারুণ হানা।
ছড়াবে হৃদয়ে আগামীর গাঢ় রঙে, ভাসাবে
মেঘের দূর নীলিমায় স্বপ্নের সাম্পান?
বলো না কখন এই ক্ষীণ হাতে ঘুরবে যুগের চাকা
কখন সত্যি নতুন বছরে আসবে নতুন দিন,
তুলবে তাদের গর্বিত মাথা আজ যারা নতজানু
এই প্রাসাদে ও অট্টালিকায় উড়বে তাদেরই নাম?
বলো না কখন ফুটবে গোলাপ গোলাপের চেয়ে বড়ো
কখন মানুষ পাবে এই দেশে শস্যের অধিকার
নতুন বছরে সেই অনাগত নতুনের প্রত্যাশা
বন্ধু, তোমাকে নববর্ষের সাদর সম্ভাষণ!

একটি নববর্ষের কবিতা

উচ্ছ্বাসের এই দিনে নবীন
ছড়াও প্রেমের বার্তা
তোমরা জাতির ধরবে হাল
আর হবে দেশের কর্তা।

শোষণ যুলুম রুখে দাঁড়াও
তাড়াও দুখের দিন
সব বেদনা ভুলে বাজাও
হেথায় সুখের বীণ।

এদেশ আমার জন্মভূমি
এদেশ আমার প্রাণ
কাঁদলে কেউ দুখে
পড়ে হৃদয় সুতোয় টান।

পুরোনো সব দুঃখ ভুলে
ফিরে এলো নববর্ষ
সব ভেদাভেদ ভুলে বাজাও
ন্যায় শাসনের হর্ষ।